ফোনের এই ছোট্ট কাজটি জানলে আপনি বড় ঝামেলা হতে বাঁচবেন এবং টাকা সেভ হবে

GP Super Fnf
GP Super Fnf

GP Super FnF – আপনি যদি একজন জিপি কাস্টমার হয়ে থাকেন। এছাড়াও আপনি প্রতিদিন কারো না কারো সাথে  বেশিরভাগ মোবাইল দিয়ে ফোনে কথা বলেন। হতে পারে সেটি আপনার ফ্যামিলির সাথে নয়তো বা বন্ধুদের সাথে। এর জন্য মোবাইলের ব্যালেন্স প্রয়োজন হয়। সেই ক্ষেত্রে বর্তমানে নতুন একটি আপডেট এর কারণে যেকোন অপারেটরে আপনি সরাসরি কল করলে যে টাকা কেটে নিবে। ঠিক একই টাকা আপনি যখন নিজের অপারেটরে কথা বলবেন।

Grameenphone Minute

যেমন গ্রামীণ থেকে বাংলালিংকে। অথবা জিপি থেকে রবি সিমে যখন আপনি কথা বলবেন। তখন একই টাকা কেটে নেওয়া হবে। সিটি আমরা সবাই জানি। শুধু তাই নয়, এই আবৃত্তির আগে আপনি শুধুমাত্র জিপি টু জিপি এর মাধ্যমেই আপনি মিনিট কার্ড ব্যবহার করতে পারতেন। কিন্তু এই নতুন আপডেটের ফলে আপনি  জিপি সিমের মিনিট কার্ড দিয়ে যেকোনো সিমে। সে মিনিট কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন। 

কমবেশি এটি আমরা অনেকেই জেনে ফেলেছি।  যেহেতু এটি একটি পুরাতন আপডেটের কথা আমি আপনাদেরকে জাস্ট  বোঝানোর ক্ষেত্রে বললাম। তবে এখন আমি আপনাদেরকে  সেই টপিকে নিয়ে যাব। এখন আমরা জানবো যে কেন আমরা আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের সাথে শেয়ার করছি।

বার বার মিনিট কার্ড লোড করার ঝামেলা

আসলে আগে যেমন আমরা সবসময় মোবাইলে ব্যালেন্স রিচার্জ করতাম সরাসরি। ফেক্সিলোড করে টাকা  লোড করতাম আমাদের ফোনে। সেই ক্ষেত্রে আমাদের ফোনে যে টাকাটা কেটে নিতো। তার থেকে অনেক বেশি টাকা বর্তমান আপডেট এর ফলে কেটে নিচ্ছে। তবে সেটা একটা সুবিধাজনক হলো। আগে এক অপারেটর থেকে অন্য অপারেটরে কল করলে। সে ক্ষেত্রে টাকা বেশি কেটে নেয়া হতো। কিন্তু এখন আপনাকে এমন একটি সুবিধা দিচ্ছে প্রত্যেকটা সিম কোম্পানি।  যার ফলে আপনি যেকোন অপারেটরে কল করুন না কেন সেই ক্ষেত্রে আপনার একই চার্জ প্রযোজ্য। 

Read Moreএটি জানলে ফোনে মেমরি কার্ড ব্যবহার করা ছেড়ে দিতে বাধ্য হবেন

যদিও আগের থেকে চার্জ একটু বাড়িয়ে নেওয়া হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে আপনি মিনিট কার্ড ব্যবহার করতে পারেন। যা টাকা কাটা থেকেও অনেক মিনিট কম কাটবে। এর জন্য বর্তমানে আমরা যারা প্রতিনিয়ত ফোনে কথা বলি অথবা প্রিয় মানুষটির সাথে কলে আলাপ করি। এজন্য আমাদের প্রতিনিয়ত অথবা প্রতিদিন দোকানিকে মিনিট কার্ড কিনতে হয়। GP Super Fnf

কারো কারো বাসায় মিনিট কার্ড দিয়ে ঝুড়িভর্তি হয়ে গিয়েছে। আবার অনেক সময় কিছু কিছু সিচুয়েশনে আমাদের মিনিট কার্ড কেনার মত টাকা অথবা দোকানে যাওয়ার মত সম্ভব হয় না। সেটি হতে পারে আপনার রাতে অথবা কাজের কোন মুহূর্তে। এছাড়াও আপনি বাসায় থেকেই ঘুরতে বের হতে পারছেন না। সেক্ষেত্রে আপনার মিনিট কার্ড এর খুবই প্রয়োজন। তখন কিন্তু আপনি বড় ধরনের একটা সমস্যার মধ্যে পড়ে যাবেন। 

Read More- Generate Text in Any Language From Pictures, Convert to Bengali

সমস্যার সমাধান 

আর এই সমস্যা সমাধানের জন্য আমি আপনাদেরকে একটি গুরুত্বপূর্ণ টিপস দেব। যারা জিপি সিম ব্যাবহার করেন তারা চাইলে আপনার প্রিয় মানুষ টির সাথে ফোন এ FNF করে নিতে পারেন। তবে ফোনে এফএনএফ করার জন্য আপনাকে অবশ্যই জিপি টু জিপি সিলেক্ট করতে হবে। যেমন আপনার ফোনটি জিপি সিমে রয়েছে এমনকি আপনার বিপরীত মানুষটার জিপি সিম থাকতে হবে। আর তখনই আপনি এফএনএফ এর মাধ্যমে মিনিট এর থেকেও কম টাকায় কথা বলতে পারবেন সারাক্ষণ। 

এফএনএফ এর সুবিধা

এটি একটি সুবিধা হলো আপনি একই সাথে অনেক টাকা লুট করে রাখলে। সেই মুহূর্তে  আপনাকে আর বারবার কার্ড ঘুষের টাকা লোড করতে হচ্ছে না। এটিও একটি বিরক্তিকর  বিষয় হতে আপনি বাঁচতে পারবেন। এটি খুব কম সময়ের ভিতর আপনাকে  অনেক বেশি হেল্প করবে। এমনকি সিম পোর্ট এর সময় আপনার ফোনে যদি মিনিট কার্ড শেষ হয়ে যায়। যেহেতু মিনিট কার্ড গুলো অনেক কম মিনিটের হয়ে থাকে। তাই আপনি এই সিস্টেমের মাধ্যমে খুব নিশ্চিন্তে আপনি এফএনএফ করে রাখতে পারেন। 

আরো পড়ুন-

কিভাবে এফএনএফ করবেন?

এফএনএফ করার জন্য। আপনি সরাসরি মাই জিপি অ্যাপৎটি ইন্সটল করে নিন আপনার ফোনে। এবার আপনার মাই জিপি অ্যাপ থেকে লগইন করুন  আপনার ফোন নাম্বারটি দিয়ে। এবার আপনি নিজে থেকে ফ্লেক্সিপ্লান, ইন্টারনে, মিনিট এবং রিচার্জ সহ আরো অনেকগুলো অপশন পেয়ে যাবেন।  আরেকটি নিচে দেখতে পারবেন যে SEE MORE বলে একটা অপশন রয়েছে। আপনি  SEE MORE ক্লিক করে একটি স্কোর ডাউন করলেই পেয়ে যাবেন।  সাবস্ক্রিপশন এন্ড সার্ভিস। আর সেখানেই দুই নম্বরে দেখতে পারবেন FnF বলে একটি অপশন রয়েছে।

সেই অপশনে ক্লিক করুন এবং তার আগে অবশ্যই নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনার সিমটি কোন প্যাকেজে রয়েছে। আপনি যে কোন প্যাকেজে থাকুন না কেন। এখান থেকে   ভিন্ন ভিন্ন প্যাকেজের সিস্টেম একেক রকম হয়ে থাকে। কোন প্যাকেজে একটি এফএনএফ করা যায় আবার কোন প্যাকেজে 17 টি এফএনএফ করা যায়। 

Read MoreTurn Off Annoying Notifications on Facebook

GP Super Fnf

যেহেতু আমি বন্ধু প্যাকেজে রয়েছি তাই আমার ফোনে একটি সুপার এফএনএফ করা যাবে।  আর বাকি 17 টি সাধারণ এফএনএফ করা যাবে। তবে সাধারন এফএনএফ করলে আপনার টাকাটা সীমিত আকারের সেভ হবে। যদি আপনার সুপার এফএনএফ থাকে তাহলে আপনি অনেক টাকা পর্যন্ত বাঁচাতে পারবেন। এতে করে আপনাকে মিনিট কার্ড কেনার প্রয়োজন। সাথে আপনি একদম কম টাকায় অনেক সময় ধরে কথা বলতে পারবেন। 

GP SIM Minute Card

 সুতরাং এবার এফএনএফ এ ক্লিক করতে পারেন। যদি আপনার আগের কোন এফএনএফ না করা থাকে। তবে মনে রাখবেন সুপার এফএনএফ যদি খালি থাকে।  তাহলে যার সাথে বেশি সময় ধরেকথা বলেন। তার নাম্বারে সুপার এফএনএফ করবেন। এজন্য সুপার এফএনএফ ক্লিক করেন। তারপর তার নাম্বারটি বসিয়ে দিন যার সাথে প্রেম করতে চাচ্ছে। অবশ্যই মনে রাখবেন। আগে যদি এফএনএফ করা থাকে তাহলে আপনি সেটাকে চাইলে ডিলিট আইকনে ক্লিক করে রিমুভ করে দিতে পারেন। আর যদি না থাকে তাহলে নাম্বারটি বসিয়ে ADD FnF ক্লিক করে ওকে করে দিন। GP Super Fnf.

আশাকরি সিস্টেমটা আপনার কাছে অনেক বেশি ভালো লেগেছে।  এবার থেকে আপনি আরো কম টাকায় অনেক সময় ধরে কথা বলতে পারবেন।  আপনার উপকারে আসলে অবশ্যই আপনার ফ্রেন্ডের সাথে শেয়ার করতে পারেন।  ধন্যবাদ…

Total
0
Shares
Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Previous Post
Best Memory Card

এটি জানলে ফোনে মেমরি কার্ড ব্যবহার করা ছেড়ে দিতে বাধ্য হবেন

Next Post
Facebook Dark Mode

অফিসিয়াল ফেসবুক অ্যাপে ডার্ক মোড চালু করার পদ্ধতি